1. nannunews7@gmail.com : admin :
  2. labonnohaq71@gmail.com : Labonno Haq : Labonno Haq
মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০, ১২:১৪ পূর্বাহ্ন

খোঁজ মেলেনি আনিছের, পুলিশের ভুমিকায় অসন্তোষ এলকাবাসীর

  • প্রকাশিত সময় : বৃহস্পতিবার, ৫ নভেম্বর, ২০২০
  • ৫ বার

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি:

কুষ্টিয়া মিরপুরে পৌর এলাকার সুলতানপুর গ্রামের দরিদ্র ভ্যান চালক আনিছ(১৫) গত ২২ অক্টোবর সকালে নিজ বাড়ি থেকে কাজে বেরিয়ে নিখোঁজ। পরদিন সকালে পাশ্ববর্তী ভেড়ামারা উপজেলার বিত্তিপাড়া গ্রামের স্কুল চত্বর থেকে পরিত্যাক্ত অবস্থায় ভ্যানটি উদ্ধার হলেও অদ্যবধি নিখোঁজ আনিছের কোন সন্ধান পায়নি তার পরিবার। এঘটনায় মা দোলেনা খাতুন মিরপুর থানায় জিডিও করেছেন। কিন্তু এখনও পর্যন্ত জীবিত বা মৃত: আনিছের কোন সন্ধান বের করতে পারেনি পুলিশ। এতে চরম হতাশাগ্রস্ত পরিবার ও এলাকাবাসী। নিখোঁজ আনিছের সন্ধানে প্রযুক্তিগত প্রক্রিয়াসহ সব রকম চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন বলে দাবি পুলিশের।

মানসিক ও শারিরীক প্রতিবন্ধী বাবা তোজুল ও মা দোলেনা খাতুন পরিবারেরর একমাত্র উপার্জনক্ষম ও জীবিকা নির্বাহের অবলম্বন কিশোর ভ্যানচালক আনিছকে হারিয়ে চরম হতাশ ও বিপর্যস্ত পরিবারটি। শেষ সম্বল বাড়ির গাছ বিক্রী ও এনজিও থেকে নেয়া ঋণের টাকায় মাত্র কয়েকদিন পূর্বেই ভ্যানটি কিনে দিয়েছিলো আনিছকে। কোন রকম চলছিলো পরিবারের অন্ন যোগার। এখন সেই অবলম্বনটুকুও হারিয়েছে পরিবারটি। অবিলম্বে নিখোঁজ আনিছকে খুজে বের করার দাবি পরিবারটির।

মা মোছা: দোলেনা খাতুনের অভিযোগ ঘটনার দিন নিজেরাই সম্ভাব্য সব জায়গায় খোঁজ করে ছেলের কোন সন্ধান না পেয়ে রাতেই মিরপুর থানায় গিয়েছিলাম পুলিশের সাহায্য চাইতে। পুলিশ জানায় এতো রাতে আমরা কোথায় খোঁজ করব ? সকালে আসেন আপনার জিডি নেয়া হবে। পরদিন সকালে পরিত্যাক্ত অবস্থায় ভ্যানটি পাওয়ার পর পুলিশ আমাদের জিডি নিয়েছেন। কিন্তু এখনও আনিছের কোন খোঁজ পায়নি পুলিশ। আমার সংসার এখন অকুল সাগরে ভাসছে। প্রতিবন্ধী বাবা তোজুল ইসলাম ছেলে আনিছের সন্ধান চেয়ে বলেন, আপনারা আমার ছেলেকে খুঁজে দেন, আমার ছেলেকে দেখতে চাই।

ভেড়ামারা উপজেলার বিত্তিপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় চত্বরে পরিত্যাক্ত ভ্যানটি উদ্ধারস্থলের প্রত্যক্ষদর্শী দোকানী সান্টু রায়হান বলেন, গত ২২অক্টোবর,সন্ধায় কে বা কারা ভ্যানটি বিত্তিপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় চত্বরে রেখে চলে যায়। প্রথমে কিছু বুঝে উঠতে পারি নাই। পরে যখন দেখি ভ্যানটি আর কেউ নিতে আসছে না; তখন বিষয়টি স্থানীয় ইউপি সদস্য ও সংশ্লিষ্ট ভেড়ামারা থানা পুলিশকে জানায়। পরে থানা থেকে পুলিশ এসে ভ্যানটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যান। তবে ভ্যানটির প্রকৃত মালিক নয় এমন কেউ এখানে রেখে চলে যায়। পরে জানতে পারি আনিছ নামের ভ্যান চালক নিখোঁজ।

মিরপুর উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি ও কুষ্টিয়া জেলা পরিষদের সদস্য হাজি মোহাম্মদ আলী জোয়ার্দার বলেন, অনেক সময় পুলিশ প্রশাসন তলনামূলক অতি ঠুনকো বিষয়ে হৈ-হুল্লোড় করে যেভাবে সাড়া ফেলে নিজেদের অস্তিত্ব জানান দেন; এক্ষেত্রে নিখোঁজ আনিছকে উদ্ধারে তাদের ভুমিকা ও কর্তব্যপরায়নতাকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে।

সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলন কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য কারশেদ আলমের অভিযোগ, সাধারণ জনজীবনের ঘটে যাওয়া অধিকাংশ অপরাধ সংঘটনের পর পুলিশের নির্লিপ্ত ভুমিকার প্রতিবাদ ও পদক্ষেপ নেয়ার দাবিতে রাস্তায় দাঁড়াতে হয়। কুষ্টিয়া পুলিশের কাছে আইনকে নিজস্ব গতিতে চলতে হচ্ছে কি না তা প্রশ্নবিদ্ধ। যে কোন অপরাধ সংঘটনের পরই ব্যানার নিয়ে দাঁড়াতে হয় রাজপথে। গৃহবধু মীম হত্যার আসামী না ধরা এবং নিখোঁজ ভ্যানচালক আনিছের সন্ধান বের করতে পুলিশের ভুমিকায় চরম অসন্তোষ উপজেলার জনপ্রতিনিধিসহ সুধী মহলের।

মিরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি তদন্ত) পুলিশ পরিদর্শক সঞ্জয় কুমার কুন্ডু বলেন, গত ২২ অক্টোবর পাকিভ্যান চালক আনিছ সকালে বাড়ি থেকে বেড়িয়ে আর ফিরে না আসায় তার পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় সাধারণ ডায়েরী করা হয়েছে। ঘটনার একদিন পর ভ্যানটি পরিত্যাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করা গেলেও এখনও এঘটনায় কাউকে আটক করতে পারেনি পুলিশ। তবে নিখোঁজ আনিছের সন্ধান বের করতে প্রযুক্তিগত পদ্ধতি ব্যবহারসহ সব রকম চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে পুলিশ এমন দাবিও করলেন এই পুলিশ কর্মকর্তা।

দেশতথ্য//এল//

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Deshtathya
Theme Design By : Rubel Ahammed Nannu : 01711011640