1. nannunews7@gmail.com : admin :
  2. labonnohaq71@gmail.com : Labonno Haq : Labonno Haq
সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ০১:৩৭ পূর্বাহ্ন

হাটহাজারীতে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ভবন নির্মাণের অভিযোগ!

  • প্রকাশিত সময় : বুধবার, ২৮ অক্টোবর, ২০২০
  • ২০ বার

মোঃ আতাউর রহমান মিয়া,হাটহাজারী(চট্টগ্রাম)সংবাদদাতাঃ
হাটহাজারীতে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে যাতায়তের পথ ও উঠান দখলে নিয়ে বহুতল ভবন নির্মাণ কাজ চালিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে এক আইনজীবীর বিরুদ্ধে। ভুক্তভোগীরা জানান, বিজ্ঞ আদালতে সি আর মামলা ৭১৫/১৯ ও মিছ মামলা(নং ৫৬৩/১৯)চলা জায়গায় আইনজীবি এসএম ফারুক নির্মাণ কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। এদিকে আইনজীবি বা আইনের লোক হয়েও আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করায় স্থানীদের মাঝে হতাশা দেখা দিয়েছে ।

সরেজমিনে গিয়ে শনিবার(২৪ অক্টোবর)বিকালের দিকে মধ্যম মাদার্শার মাদারীপুল এলাকার চুহুর কাজীর বাড়ীর ঘটনাস্থলে গিয়ে চলাচলের রাস্তার উপরে ছাদ বানানোর জন্য সেন্টারিং বসানো দেখা ও অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যায়। এদিকে ভুক্তভোগীরা নিরুপায় হয়ে হাটহাজারী মডেল থানার এসআই(মামলার আইও)হাবিবকে আদালত অবমাননার বিষয়টি জানিয়ে সাহায্য চাইলেও তিনি কোনো ব্যবস্থা গ্রহন করেননি বলে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত এসএম ফারুকের সামনে স্থানীয় কয়েকজন ব্যক্তির কাছে জানতে চাইলে তারা জানান, অনেক আগে থেকেই জানতাম ,এসএম ফারুকের আগে যে সেমিপাকা ঘর ছিল সে পর্যন্ত ওনার জায়গা। তবে এখন শুনছি আবু সুফিয়ানদের(বাদী)ঘরেও অভিযুক্তদের জায়গা আছে। তাই তিনি বাদীর বসত ঘরের দেয়াল ঘেঁষে ভবন নির্মাণ করছেন। এ ব্যাপারে মুন্সিরাই ভাল বলতে পারবেন। ভুক্তভোগী বাদী আবু সুফিয়ান, আবুল কালাম বলেন, অভিযুক্ত এসএম ফারুক উকিল হওয়ায় তিনি বিভিন্ন মামলা দিয়ে আমাদের কে হয়রানি করে আমাদের জায়গা দখল করার অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। তিনি এলাকার কোন সালিশ বিচারও মানেন না। আমরা তার এমন অত্যাচার থেকে বাচার জন্য ইউপি চেয়ারম্যান, সংশ্লিষ্ট থানা, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও চট্টগ্রাম আইনজীবি সমিতি বরাবরে লিখিত অভিযোগ করেও কোন সমাধান পাচ্ছি না। আমাদের সব কাগজপত্র আছে। কিন্তু আদালতের নিষেধাজ্ঞা থাকার সত্তেও এসএম ফারুক আইন অমান্য করে তার দলবল নিয়ে জোরপূর্বক নির্মাণ কাজ চালিয়ে যাচ্ছে ।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত এসএম ফারুকের নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন, “নির্মাণাধীন ভবনের জমিতে তাদের কোনো জমি নাই। এখানে আদালতের ১৪৭ ধারা নিষেধাজ্ঞা আছে তা ঠিক। তবে ১৪৭ ধারা কি সেটা জানতে হবে? ১৪৭ ধারা হল রাস্তা সংক্রান্ত মামলা। আমি তো রাস্তায় কোনো প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছি না। আমি আমার জায়গায় বিল্ডিং করছি। কিন্তু তাদের কারণে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করতে পারিনি “। রাস্তার উপর ছাদ দেয়াটা বৈধ কিনা জানতে চাইলে উত্তরে তিনি সাংবাদিকদের জানান,”স্থানীয় সালিশকাররা কাজ করতে বলেছেন বলে আমি কাজ করছি”। তবে আদালতকে বিষয়টি জানাননি বলে স্বীকার করেছেন তিনি।

সংশ্লিষ্ট ইউপি সদস্য মো.নুরুল আলম বলেন,”সম্পর্কে তারা আপন জেঠাত ও চাচতো ভাই। তারা উভয় পক্ষ আমার কাছে এসেছিলো । দুই পক্ষ কে নিয়ে একটা বৈঠকও করা হয়েছে এবং বৈঠকে নেয়া সিদ্ধান্ত সমুহ এক পক্ষ মানলেও অপর পক্ষ মানেনি। তারপরও আপোষ মিমাংসা করার জন্য চেষ্টা করছি।”

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে হাটহাজারী মডেল থানার এসআই (তদন্ত কর্মকর্তা) হাবিব বলেন,”অভিযুক্ত ব্যক্তি পুলিশের নিষেধও মানছেনা, নিউজ করে দেন”।

বিষয়টি পুলিশ কে জানিয়েও কোনো ফল না পাওয়ায় বর্তমানে ভুক্তভোগী পরিবার এ ব্যাপারে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সুদৃষ্টি কামনা করেছেন।

দেশতথ্য//এল//

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Deshtathya
Theme Design By : Rubel Ahammed Nannu : 01711011640