1. nannunews7@gmail.com : admin :
  2. labonnohaq71@gmail.com : Labonno Haq : Labonno Haq
শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০, ০৩:৪৭ অপরাহ্ন

কুষ্টিয়া জেলার সকল সংবাদ

  • প্রকাশিত সময় : শনিবার, ১৭ অক্টোবর, ২০২০
  • ৮ বার

কুষ্টিয়ায় গণস্বাক্ষর সংগ্রহ

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি
কুষ্টিয়া শহরের রেললাইন সংলগ্ন কোর্ট স্টেশন থেকে বাবর আলী গেট পর্যন্ত রেললাইনের পাশ দিয়ে নির্মিত বাইপাস সড়কটি খুলে দেওয়ার দাবির পক্ষে গণস্বাক্ষর সংগ্রহ অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে।
পৌরসভাবাসীর উদ্যোগে শুক্রবার সকালে এ গণস্বাক্ষর সংগ্রহ অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় গণস্বাক্ষর দিয়ে পৌরসভাবাসী জানান,আমাদের চলাচলের জন্য রেললাইনের পাশ দিয়ে নির্মিত বাইপাস সড়ক খুলে দিলে আর দুর্ভোগ পোহাতে হবে না। শহরের অন্য সড়ক দিয়ে গেলে যানজটে আটকে থাকতে হয়। এই সড়কটি খুলে দিলে খুব সহজেই তারা যাতায়াত করতে পারবেন। রাস্তায় গাড়ির এত চাপ যে পারাপার হওয়া যায় না। তাই দ্রুত এই সড়কটি খুলে দেওয়ার দাবি জানান তারা। এসময় সড়ক খুলে দেওয়ার দাবির পক্ষে কয়েক হাজার মানুষ গণস্বাক্ষর দেন।

কুষ্টিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় আহত ব্যবসায়ীর মৃত্যু 

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি:
কুষ্টিয়ার খোকসা উপজেলা বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও মাইওয়ান শোরুম এর স্বত্বাধিকারী শহিদুল ইসলাম (৫৫) কুষ্টিয়া রাজবাড়ী মহাসড়কের ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের সম্মুখে গত বৃহস্পতিবার (৯ অক্টোবর) সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার (১৫ অক্টোবর) রাত ৮ টার সময় ইন্তেকাল করেছেন। (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তিনি উপজেলার মাইওয়ান শোরুম এর স্বত্বাধিকারী ছিলেন। মৃত্যুকালে চার কন্যা ও স্ত্রী সহ আত্মীয়-স্বজন ও অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।
মৃত কেরামত আলীর বিশ্বাসের ছেলে শহিদুল ইসলামের লাশ শুক্রবার সকালে তার গ্রামের বাড়ি কোমলাপুর মোল্লা পাড়ায় আসলে এক হৃদয়বিদারক এর সৃষ্টি হয়।
পরে বাদ জুম্মা নামাজে জানাজার পর কোমলাপুর কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

কুষ্টিয়ায় ইয়াবাসহ যুবক আটক

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি :

গতকাল শুক্রবার ১৬ অক্টোবর কুষ্টিয়া দৌলতপুরে থানার ভাগজোত গ্রামে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মথুরাপুর ফাঁড়ির ইনচার্জ সনজিত কুমার এর নেতৃত্বে সঙ্গীয় ফোর্স এক অভিযান চালিয়ে মোঃ বাদশা হোসেন( ৩২) নামের এক যুবককে ১৬০ পিচ ইয়াবাসহ আটক করে।

আটক বাদশা হোসেন (৩২),পিতাঃমোঃনাজিম উদ্দিন ভানুকর। থানা-বাঘা,জেলা -রাজশাহী থেকে তার শশুর বাড়ি ভাগজোত গ্রামের দৌলতপুর বেড়াতে আসে এবং শশুর মোঃ লবির (৬৪) এর বাড়ি থেকে জামাইকে তার সাথে থাকা ইয়াবা ট্যাবলেট সহ পুলিশ তাকে আটক করে দৌলতপুর থানায় তার বিরুদ্ধে মাদক মামলা দায়ের করেন।

কৃষক ও ভোক্তাদের স্বার্থ রক্ষায় বাজার সিন্ডিকেটকে ধ্বংস করতে হবে : ইনু 

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি

নিত্যপণ্যের দাম নিয়ন্ত্রে সংঘবদ্ধ ধর্ষক বাহিনীর মতই সংঘবদ্ধ বাজার সিন্ডিকেটকে কঠোর ভাবে দমন করতে হবে বলে জানিয়েছেন, তথ্যমন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু।

তিনি শনিবার কুষ্টিয়া ভেড়ামারা উপজেলা ডায়বেটিক হাসপাতালের বার্ষিক সাধারণ সভায় যোগদানের পুর্বে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জব্বাবে এ কথা বলেন।

এসময় জাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আলিম স্বপন, কুষ্টিয়া জেলা জাসদের সাংগঠনিক সম্পাদক অসিত সিংহ রায়, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক বশির উদ্দিন বাচ্চু, ভেড়ামারা উপজেলা জাসদের সভাপতি এমদাদুল ইসলাম আতা, উপজেলা যুবজোটের সহ-সভাপতি আনোয়ারুল কবীর টুটুল সহ স্থানীয় জাসদ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

হাসানুল হক ইনু বলেন, কৃষক ও ভোক্তাদের স্বার্থ রক্ষায় বাজার সিন্ডিকেটকে ধ্বংস করতে হবে। তবেই নিত্যপণ্য সাধারণ মানুষের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে আসবে।

পরে উপজেলা ডায়বেটিক হাসপাতালের বার্ষিক সাধারণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন তথ্যমন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু এমপি।

এসময় উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোহেল মারুফ, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আক্তারুজ্জামান মিঠু, ডা. এস এম মোস্তানজীদসহ ডায়বেটিক সমিতির সদস্যগণ উপস্থিত ছিলেন।

 

কুষ্টিয়ায় পলাশ নামের এক যুবকের বিরুদ্ধে ভ্রণ হত্যার অভিযোগ 

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি

সারাদেশে সরকার ও প্রশাসন যখন ধর্ষণের বিরুদ্ধে জিরোট্রলারেন্স চালিয়ে যাচ্ছে ঠিক তখনই কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার কুর্শা ইউনিয়নে মাঝিরহাটে এক মেয়েরে সাথে ৭ মাস ধরে শারীরিক সম্পর্কের পর গর্ভপাতের অভিযোগ উঠেছে পলাশ নামের এক যুবকের বিরুদ্ধে।

জানাগেছে, কুর্শা ইউনিয়নের মাঝিরহাট গ্রামের মৃত সোহরাব মাস্টারের ছেলে বঙ্গবন্ধু আদর্শ ঐক্য পরিষদের কুষ্টিয়া জেলা সভাপতি নুরুজ্জামান পলাশ মোল্লা(৩৫) একই গ্রামের মৃত আঃ মালেকের মেয়ে তৃষার (ছদ্মনাম) সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। প্রেমের সম্পর্কের শুরু থেকেই ভুক্তভুগী মেয়েটির সাথে শারিরীর সম্পর্ক গড়ে তোলে অভিযুক্ত পলাশ।

প্রাশ ৭মাস ধরে এভাবে শারিরীক সম্পর্ক হওয়াতে একপর্যায়ে মেয়েটি গর্ভবতী হয়ে যায়। তবে এমন ঘটনা ঘটার পরও একাধিকবার মেয়েটির নিজ বাড়িতে গিয়ে শারিরীক সম্পর্ক করে সোহরাব মাস্টারের ছেলে নুরুজ্জামান পলাশ। তবে মেয়েটির গর্ভবতীর দিন যখন দিন দিন বাড়তে থাকে ঠিক তখনই মেয়েটি লোকলজ্জার ভয়ে বাচ্চাটিকে বৃহঃবার দুপুর ১২টার সময় নিজ বাসাতেই গর্ভপাত করান। পরবর্তীতে সেই নবজাতক বাচ্চাটিকে নিজ বাসার আঙ্গিনাতেই মাটিচাপা দিয়ে রাখে।

তবে নাম বলতে অনইচ্ছুক অনেকেই বলছেন, বাচ্চাটি গর্ভপাত করানোর পর বাচ্চাটি বেচে ছিলো, পরবর্তীতে নুরুজ্জামান পলাশ জোরপূর্বক মেয়েটিয়ে দিয়ে ওই নবজাতক বাচ্চাটিকে ঔষুধ খাওয়াইয়ে মেরে ফেলা হয় এবং পরবর্তীতে বাড়ির পাশেই এক ঝোপে মাটিচাপা দেওয়া হয়। এবিষয়ে ভুক্তভোগী তৃষার (ছদ্মনাম) সাথে কথা হলে তিনি জানান, আমার সাথে পলাশের ৭ মাস ধরে প্রেমের সম্পর্ক। আর এই প্রেমের সম্পর্ক থেকেই আস্তে আস্তে শারিরীক সম্পর্কতে জড়িয়ে পড়ি আমরা। পলাশ আমার সাথে একাধিকবার আমার বাসাতে শারিরীক সম্পর্ক করেছে। তবে এর মধ্যেই আমি গর্ভবতী হয়ে যায়। এখন পলাশের সাথে আমার কোন যোগাযোগ হচ্ছেনা, আমার কোন খোজখবর রাখেনা।

আর তাই আমি বাধ্য হয়ে বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার সময় নিজ বাড়িতেই গর্ভপাত কড়িয়ে নিজ বাড়ির আঙ্গিনাতে মাটিচাপা দিয়ে রাখি। তবে পলাশের ভাই আমাকে নানা মহলে চরিত্রহীনা বানানোর চেষ্টা করছে।

মেয়েটির মা জানান, আমার মেয়ের সাথে পলাশের শারিরীক সম্পর্ক গড়ে ওঠার কারনেই আজ আমাদের এমন দশা। আমার স্বামী নেই, মা ও মেয়ে এই বাড়িতে থাকি। অভিযুক্ত পলাশের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তা সম্ভব হয়নি। তবে সংবাদ সংগ্রহ করতে গেলে বেশ কয়েকজনসহ পলাশের ভাই হাজির হয় মেয়েটির বাড়িতে।

সেসময় তিনি জানান, এই মেয়ে একাধিক মানুষের সাথে অবৈধ সম্পর্ক রাখায় এমন দশা। আমার ভাই এর সাথে জড়িত না। তবে এলাকাবাসী বলছে, মেয়েটির পরিবার অনেক গরীব, আর তাই বাড়ি করতে পলাশ কিছুটা হেল্প করে। আর এই সুযোগ নিয়েই আস্তে আস্তে প্রেমেন সম্পর্ক গড়িয়ে এমন শারিরীক সম্পর্ক।

অভিযুক্ত নুরুজ্জামান পলাশ কুর্শা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ নেতা হান্নান মোল্লার ভাতিজা ও বঙ্গবন্ধু আদর্শ ঐক্য পরিষদের কুষ্টিয়া জেলা সভাপতি হওয়ায় এবং তার ভাই ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি হওয়াতে পরবিারটি ভয়ের মুখে পড়ে আছে। নির্যাতনের শিকার হয়েও তারা মুখ খুলতে পারছেনা।

এবিষয়ে মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জানান, ঘটনাটি শোনার সাথে সাথেই আমরা থানা থেকে অফিসার পাঠিয়েছি। সেইসাথে পরিবারটিকে লিখিত অভিযোগ দেবার অনুরোধও করেছি তবে মেয়ে বা মেয়েটির পরিবারের পক্ষ থেকে কোন অভিযোন দেয়নি। লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে এমন ঘটনার পরও কেনো মেয়ে বা মেয়েটির পরিবার থেকে পুলিশি অভিযোগ এখনও করা হলোনা বিষয়টি নিয়ে শুশীল সমাজে এক ধ্র“বজাল সৃষ্টি হয়েছে।

তবে বঙ্গবন্ধুর নামে গড়া ঐতিয্যবাহী সংগঠন বঙ্গবন্ধু আদর্শ ঐক্য পরিষদের কুষ্টিয়া জেলা সভাপতির মতো একটি পদে থেকে যদি এমন জঘন্য কাজ করে তাহলে সংগঠনটির সুনাম ব্যাপক ক্ষুন্ন হবে বলে মনে করা হচ্ছে। কেউ কেউ মনে করছেন কোন অদৃশ্য শক্তির চাপেইকি মেয়েটির সাথে এমন ঘটনা ঘটার পরও আইনের আশ্রয়ে যাচ্ছেনা…?

ঙ্গবন্ধু আদর্শ ঐক্য পরিষদের কুষ্টিয়া জেলা সভাপতি পলাশ ধর্ষন মামলায় আটক 
এনামুল হক, কুষ্টিয়া :
অবশেষে সংবাদ প্রকাশের জেরে বঙ্গবন্ধু আদর্শ ঐক্য পরিষদের কুষ্টিয়া জেলা সভাপতি নুরুজ্জামান পলাশকে আটক করেছে মিরপুর থানা পুলিশ। নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের হয়েছে। মামলা নং ১২। তাং১৭/১০/২০২০ ইং
শনিবার স্থানীয় দৈনিক পত্রিকায় বঙ্গবন্ধু আদর্শ ঐক্য পরিষদের কুষ্টিয়া জেলা সভাপতি পলাশের বিরুদ্ধে ধর্ষন ও গর্ভপাতের অভিযোগ শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়। বিষয়টি মিরপুর থানার নজরে এলে তদন্ত করে এর সত্যতা নিশ্চিত হওয়ার পরে তাকে আটক করা হয়।
জানাগেছে, কুর্শা ইউনিয়নের মাঝিরহাট গ্রামের মৃত সোহরাব মাস্টারের ছেলে বঙ্গবন্ধু আদর্শ ঐক্য পরিষদের কুষ্টিয়া জেলা সভাপতি নুরুজ্জামান পলাশ মোল্লা (৩৫) একই গ্রামের মৃত আঃ মালেকের মেয়ে তৃষার (ছদ্মনাম) সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। প্রেমের সর্ম্পকের শুরু থেকেই ভুক্তভুগী মেয়েটির সাথে শারিরীর সম্পর্ক গড়ে তোলে অভিযুক্ত পলাশ। প্রায় ৭মাস ধরে এভাবে শারিরীক সম্পর্ক হওয়াতে একপর্যায়ে মেয়েটি গর্ভবতী হয়ে যায়। তবে মেয়েটির গর্ভবতীর দিন যখন দিন দিন বাড়তে থাকে ঠিক তখনই মেয়েটি লোকলজ্জার ভয়ে বাচ্চাটিকে গত বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার সময় নিজ বাসাতেই গর্ভপাত করান। পরবর্তীতে সেই নবজাতক বাচ্চাটিকে নিজ বাসার আঙ্গিনাতেই মাটিচাপা দিয়ে রাখে। তবে নাম বলতে অনইচ্ছুক অনেকেই বলছেন, বাচ্চাটি গর্ভপাত করানোর পর বাচ্চাটি বেচে ছিলো, পরবর্তীতে নুরুজ্জামান পলাশ জোরপূর্বক মেয়েটিকে দিয়ে ওই নবজাতক বাচ্চাটিকে ঔষুধ খাওয়াইয়ে মেরে ফেলা হয় এবং পরবর্তীতে বাড়ির পাশেই এক ঝোপে মাটিচাপা দেওয়া হয়। এবিষয়ে ভুক্তভোগী তৃষার (ছদ্মনাম) সাথে কথা হলে তিনি জানান, আমার সাথে পলাশের ৭ মাস ধরে প্রেমের সম্পর্ক। আর এই প্রেমের সম্পর্ক থেকেই আস্তে আস্তে শারিরীক সম্পর্কতে জড়িয়ে পড়ি আমরা।
পলাশ আমার সাথে বিয়ের প্রলোভন একাধিকবার শারিরীক সম্পর্ক করেছে। এর মধ্যেই আমি গর্ভবতী হয়ে যাই। এখন পলাশের সাথে আমার কোন যোগাযোগ হচ্ছেনা, আমার কোন খোঁজখবর রাখেনা। আর তাই আমি বাধ্য হয়ে গত বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার সময় নিজ বাড়িতেই গর্ভপাত কড়িয়ে নিজ বাড়ির আঙ্গিনাতে মাটিচাপা দিয়ে রাখি। তবে পলাশের ভাই আমাকে নানা মহলে চরিত্রহীনা বানানোর চেষ্টা করছে। মেয়েটির মা জানান, আমার মেয়ের সাথে পলাশের শারিরীক সম্পর্ক গড়ে ওঠার কারনেই আজ আমাদের এমন দশা। আমার স্বামী নেই, মা ও মেয়ে এই বাড়িতে থাকি। অভিযুক্ত পলাশের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তা সম্ভব হয়নি। তবে সংবাদ সংগ্রহ করতে গেলে বেশ কয়েকজন সহ পলাশের ভাই হাজির হয় মেয়েটির বাড়িতে। সেসময় তিনি জানান, এই মেয়ে একাধিক মানুষের সাথে অবৈধ সম্পর্ক রাখায় এমন দশা। আমার ভাই এর সাথে জড়িত না।
তবে এলাকাবাসী বলছে, মেয়েটির পরিবার অনেক গরীব, আর তাই বাড়ি করতে পলাশ কিছুটা হেল্প করে। আর এই সুযোগ নিয়েই আস্তে আস্তে প্রেমের সম্পর্ক গড়িয়ে এমন শারিরীক সম্পর্ক। অভিযুক্ত নুরুজ্জামান পলাশ কুর্শা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ নেতা হান্নান মোল্লার ভাতিজা ও বঙ্গবন্ধু আদর্শ ঐক্য পরিষদের কুষ্টিয়া জেলা সভাপতি হওয়ায় এবং তার ভাই ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি হওয়াতে পরিবারটি ভয়ের মুখে পড়ে আছে। নির্যাতনের শিকার হয়েও তারা মুখ খুলতে পারছেনা।
এবিষয়ে মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জানান, ঘটনাটি শোনার সাথে সাথেই আমরা থানা থেকে অফিসার পাঠিয়েছিলাম। সেইসাথে পরিবারটিকে লিখিত অভিযোগ দেবার অনুরোধও করেছিলাম। লিখিত অভিযোগ পেয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে যাহার মামলা নং ১২।

 

কুষ্টিয়ায় নারী ধর্ষণ ও নির্যাতন প্রতিরোধে পুলিশিং সভা

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি

মুজিব বর্ষের অঙ্গিকার, পুলিশ হবে জনতার এই শ্লোগান সামনে রেখে কুষ্টিয়া মডেল থানা পুলিশের আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয়েছে নারী ধর্ষণ ও নির্যাতন প্রতিরোধে পুলিশিং সভা। শনিবার সকাল ১০ টায়, কুষ্টিয়া পৌরসভার ১৩ নং ওয়ার্ডের ত্রিমোহনী বাজারে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। কুষ্টিয়া মডেল থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কামরুজ্জামান তালুকদারে সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও সদর সার্কেল জনাব আতিকুল ইসলাম আতিক । প্রধান অতিথি তার সংক্ষেপিত বক্তব্যে বলেন, আমরা কুষ্টিয়া ১৩ নং ওয়ার্ড কে মডেল হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। এখানে থাকবে না কোন নারী ধর্ষণ, নির্যাতন, হত্যা ও চুরি ডাকাতি। আজ থেকে আমরা প্রত্যেকে বাড়ি গিয়ে সন্তানদের প্রতি নজর রাখবো। সে কোথায় যায়, কার সাথে মিশে এবং কি করে। আমরা যদি এত টুকু নজর দেই তাহলে কোন পিতার সন্তানই নষ্ট হবেনা। উক্ত অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ১৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রবিউল ইসলাম

বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, ১৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি জনাব তোজাম্মেল হক। ১৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন,১৩ নং ওয়ার্ডের পুলিশিং ফোরামের সাধারণ সম্পাদক আবুল হোসেন, ১৩ নং ওয়ার্ডের মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি কাজলি, ও সাধারণ সম্পাদক রেখা, আরো উপস্থিত ছিলেন মহিলা আওয়ামীলীগ কমীবৃন্দ।অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন ৫ নং বিট ইনচার্জ এসআই জাহাঙ্গীর, এবং তার সঙ্গে সহযোগিতা করেন এ এস আই তানভীর , উক্ত অনুষ্ঠানের সভাপতি কুষ্টিয়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ কামরুজ্জামান তালুকদার তার বক্তব্য বলেন, অপরাধ দমন এবং পুলিশী সেবা বাড়িতে বাড়িতে পৌঁছে দেয়ার লক্ষে বিট পুলিশিং কার্যক্রম চালু করা হয়েছে। জনগন দ্রুত যেন পুলিশি সেবা পায় এবং অপরাধ দমন ও আইনশৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখতেই এটি চালু করা হয়েছে। বক্তব্য শেষে অনুষ্ঠানটি সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

দেশতথ্য//এল//

 

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Deshtathya
Theme Design By : Rubel Ahammed Nannu : 01711011640