1. nannunews7@gmail.com : admin :
  2. labonnohaq71@gmail.com : Labonno Haq : Labonno Haq
শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০, ০৭:০৪ পূর্বাহ্ন

নীলফামারী জেলার সব সংবাদ

  • প্রকাশিত সময় : শুক্রবার, ১৬ অক্টোবর, ২০২০
  • ৫ বার

মাত্র ৯টি কোচ নিয়ে চলছে রূপসা-সীমান্ত এক্সপ্রেস ট্রেন
নীলফামারী প্রতিনিধি :দীর্ঘ দূরত্বে চিলাহাটি-খুলনা রূটে চলাচলকারী রূপসা ও সীমান্ত এক্সপ্রেস আন্তনগর ট্রেন দুটি নয়টি করে কোচ নিয়ে চলাচল করছে। অতীতে ওই ট্রেন বহরে ১১টি করে কোচ ব্যবহার হতো। কোচ সংকটের কারণে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন যাত্রীরা। এতে করে ট্রেনে স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে না বলে অভিযোগ উঠেছে।
অনুসন্ধানে জানা যায়, আগে ট্রেনটি ১১টি কোচ নিয়ে চলাচল করতো। করোনা মহামারির জন্য যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়। এরপর গত ৩১ মে রূপসা এক্সপ্রেস ট্রেনটি চালু হয়। চালু হয় সীমান্ত এক্সপ্রেস ট্রেনটিও। কিন্তু ট্রেন দুটিতে ১১টি কোচের বদলে মাত্র নয়টি কোচ নিয়ে চলাচল শুরু করে। প্রতিটি বহরে দুটি করে কোচ কমে যাওয়ায় যাত্রীরা পড়ে দুর্ভোগে। ওই ট্রেন দুটিতে প্রতিদিন কমপক্ষে পাঁচ হাজার যাত্রী পরিবহন হয়ে থাকে। দুটি করে কোচ কম থাকায় যাত্রীর ভিড় বেড়ে যায়। তবে রাজস্ব হারাচ্ছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ।
রেলওয়ে সূত্র জানায়, ২০০৩ সালে ইন্দোনেশিয়ার পিটিইনকা কোচ ফ্যাক্টরির তৈরি ৫০টি লাল-সাদা আধুনিক কোচ আমদানি করা হয়। বর্তমানে এসব কোচ দিয়ে খুলনা-চিলাহাটি পথে রূপসা, সীমান্ত ও রাজশাহী-খুলনা পথে সাগড়দাঁড়ি এক্সপ্রেস ট্রেনগুলো চলাচল করছে। এসব ট্রেন বহর নয়টি করে কোচ নিয়ে চলাচল করছে বলে জানায় সূত্রটি। বাকি ২৩টি কোচ মেরামতের জন্য সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানায় রাখা হয়েছে।
পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের প্রধান যন্ত্র প্রকৌশলী (সিএমই) মুহাম্মদ কুদরত-ই-খুদা জানান, কোচগুলো পুরাতন হয়ে যাওয়ায় এসব ভারী মেরামত চলছে। দু’এক মাসের মধ্যে সংকট কেটে যাবে।
রেলওয়ের পাকশী বিভাগের বিভাগীয় যন্ত্র প্রকৌশলী (ডিএমই ক্যারেজ) মমতাজুল হক জানান, আমাদের হাতে ২৩টি কোচ রয়েছে। যা মেরামতের জন্য সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানায় অবস্থান করছে। এরমধ্যে শোভন চেয়ার কোচ পর্যাপ্ত নেই। আর ট্রেনে বৈদ্যুতিক সংযোগের জন্য যে পাওয়ার কার প্রয়োজন তাও পর্যাপ্ত নেই। যাত্রী দুর্ভোগের বিষয়টি মাথায় রেখে আমরা সংকট উত্তরণের চেষ্টা করছি। দ্রুত সমস্যার সমাধান হবে।

 

বিজিবি নীলফামারী ব্যাটালিয়নে যুক্ত হলো ‘অর টেরেইন ভেহিক্যাল’

নীলফামারী প্রতিনিধি : সীমান্ত এলাকার মধ্যে অধিকতর দূর্গম এবং স্পর্শকাতর এলাকায় দ্রুত ও কার্যকরভাবে টহল পরিচালনার মাধ্যমে অপরাধ হ্রাস করার লক্ষ্যে বিজিবি নীলফামারী ব্যাটালিয়নে দুটি ‘অল টেরেইন ভেহিক্যাল’ যুক্ত হয়েছে।
বৃহস্পতিবার (১৫ অক্টোবর) থেকে পঞ্চগড়র জেলার বোদা উপজেলা সীমান্ত এলাকায় এই দুটি ভেহিক্যাল সীমান্ত সুরক্ষায় ব্যবহৃত হচ্ছে। নীলফামারী ব্যাটালিয়ন (৫৬ বিজিবি) এর পরিচালক লেঃ কর্ণেল মো. মামুনুল হক জানান, আন্তঃসীমান্ত অপরাধ দমনে সক্রিয় ভূমিকা রাখার পাশাপাশি সীমান্ত হত্যা, হ্রাসেও বিশেষ কার্যকরী ভূমিকা রাখবে এটিভি।
এগুলো কর্দমাক্ত সরু রাস্তা, বালুময় চরাঞ্চল, খাল-বিলসহ বিভিন্ন জলাশয়, পাহাড়ী রাস্তা এবং যে কোন দূর্গম রাস্তায় চলাচলের জন্য উপযুক্ত। তিনি বলেন, ব্যাটালিয়নের আওতাভুক্ত সীমান্ত এলাকায় এই এটিভি গুলো ব্যবহৃত হবে।

নীলফামারীতে বিশ্ব হাত ধোয়া দিবসে জীবানু মুক্ত উপকরণ বিতরণ

নীলফামারী প্রতিনিধি : নীলফামারীতে বিশ্ব হাত ধোয়া দিবস উপলক্ষে দুই’শ জনের মাঝে হাত জীবানু মুক্ত করণ উপকরণ বিতরণ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৫ অক্টোবর) দুপুরে জেলা শহরের বঙ্গবন্ধু চত্বরে এই কর্মসুচী পালন করা হয় জেলা প্রশাসন ও জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের আয়োজনে।
এতে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক হাফিজুর রহমান চৌধুরী। জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর নীলফামারীর নির্বাহী প্রকৌশলী মোকাররম হোসেনের সভাপতিত্বে এ সময় স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক আব্দুল মোত্তালেব সরকার, সিভিল সার্জন অফিসের সিনিয়র স্বাস্থ্য শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুল কাদের বক্তব্য দেন।
অনুষ্ঠানে সঠিক ভাবে হাত ধোয়ার কৌশল প্রদর্শন করা হয়। একই সময় ‘উন্নত স্যানিটেশন নিশ্চিত করি, করোনা ভাইরাস মুক্ত জীবন গড়ি’ শ্লোগানে জাতীয় স্যানিটেশন মাসের উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি। জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী মোকাররম হোসেন জানান, ‘সকলের হাত পরিচ্ছন্ন থাক’ শ্লোগানে এবারে বিশ্বব্যাপী হাত ধোয়া দিবস পালন করা হচ্ছে।
দিবস ঘিরে জেলা শহরে হাত দুই’শ জনের মাঝে সাবান, স্যানিটাইজার ও মাস্ক একটি করে বিতরণ করা হয়। এদিকে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন সেইফ ফাউন্ডেশন একই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ স্বাস্থ্য উপকরণ বিতরণ করে বিভিন্নজনের মাঝে।

 

নীলফামারীতে কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ
নীলফামারী প্রতিনিধি :নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার নয়ানখাল স্কুল অ্যান্ড কলেজের ইংরেজি বিষয়ের প্রভাষক সৈয়দ পাপলু মিয়ার (৩২) বিরুদ্ধে ওই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে।
বৃহস্পতিবার (১৫ অক্টোবর) ওই ছাত্রীর বাবা রংপুর জেলার তারাগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেছেন।
তারাগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইসমাইল হোসেন জানান, মামলার একমাত্র আসামি প্রভাষক সৈয়দ পাপলু মিয়াকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাকে রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার চতরা ইউনিয়নের কাঁটাদুয়ার গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পাপলু ওই গ্রামের সৈয়দ আব্দুর রশিদের ছেলে।
ছাত্রীর পরিবারের অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, অভিযুক্ত প্রভাষক নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার বাহাগিলি ইউনিয়নের নয়ানখাল স্কুল অ্যান্ড কলেজের ইংরেজি বিষয়ের প্রভাষক। করোনাকালীন সময়ের আগে পাপলু মেয়েটিকে বিয়ের প্রস্তাব দেয়। মেয়েটি তার অভিভাবকদের সঙ্গে কথা বলতে বলে প্রভাষককে। পরে প্রভাষক মেয়েটির বাবার কাছে বিয়ে প্রস্তাব দেয়। মেয়ের বাবা প্রভাষককে তার অভিভাবকদের নিয়ে আসতে বলেন।
এ অবস্থায় প্রভাষক মেয়েটিকে প্রাইভেট পড়ানোর জন্য তার বাসায় নিয়মিত আসতে বলেন। কলেজ বন্ধ থাকায় মেয়েটি অন্য শিক্ষার্থীদের সঙ্গে গিয়ে প্রাইভেট পড়তো। গত ৫ মে সকালে মেয়েটি প্রাইভেট পড়তে গিয়ে দেখে সে ছাড়া আর কোনো শিক্ষার্থী পড়তে আসেনি। এ সময় প্রভাষক তাকে অচিরেই বিয়ে করবে এমন প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ করেন।
এ ঘটনা মেয়েটি তার অভিভাবকদের জানায়। পরে ওই প্রভাষককে মেয়েটির অভিভাবকরা দ্রুত বিয়ে করার জন্য অনুরোধ করেন। কণ করোনা সংকট স্বাভাবিক হলে বিয়ে করবে বলে সময় পার করতে থাকেন প্রভাষক। পরে হঠাৎ তার নিজ বাড়ি পীরগঞ্জে চলে গিয়ে মেয়েটির সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে দেন। বিভিন্ন প্রভাবশালীদের হুমকি-ধমকিতে এতোদিন তারা মামলা করার সাহস পায়নি বলেও জানায় মেয়েটির পরিবার।
ওসি ইসমাইল হোসেন বলেন, ওই মেয়ের ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য আদালতের মাধ্যমে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। পাশাপাশি গ্রেফতার আসামিকেও আদালতে পাঠানো হয়েছে।

দেশতথ্য//এল//

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Deshtathya
Theme Design By : Rubel Ahammed Nannu : 01711011640