1. nannunews7@gmail.com : admin :
  2. labonnohaq71@gmail.com : Labonno Haq : Labonno Haq
শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০, ১২:৪৫ অপরাহ্ন

নীলফামারীর সৈয়দপুরে গ্রামীণ সড়কে সবজির সমারোহ

  • প্রকাশিত সময় : বৃহস্পতিবার, ১৫ অক্টোবর, ২০২০
  • ৬ বার

নীলফামারী প্রতিনিধি :

গ্রামীণ সড়কের দুপাশে সবজির সমারোহ। গ্রামীণ রাস্তার দুই পাশে সারি সারি শাকসবজির মাঁচা। মাঁচাগুলো ভরে গেছে সবজি গাছের সবুজ লতাপাতা, ফুল ও সবজিতে। এতে কোনটিতে ফুল এসেছে, আবার কোনটিতে ফল ধরেছে। খাওয়ারও উপযোগী হয়েছে কোন কোনটি সবজি। আর খাবার উপযোগী সবজির মাঁচাগুলো থেকে সবজি সংগ্রহ করছেন গ্রামের কৃষক-কৃষাণী। সেই সঙ্গে চলছে সবজি গাছের নানা রকম পরিচর্যাও। গ্রামের কৃষক-কৃষাণিরা নিজেরাই চাষাবাদ করে নিজেদের পুষ্টির চাহিদা মেটাচ্ছেন। এতে করে অন্যান্য এলাকার মানুষও রাস্তার ধারে পড়ে থাকা জমিতে সবজি চাষে আগ্রহী হয়ে উঠছেন।
সবজির সমারোহের এই চিত্র মিলেছে নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলার কামারপুকুর ইউনিয়নের কামারপুকুর ব্লকে। ওই ব্লকের সৈয়দপুর-দিনাজপুর সড়ক থেকে পাখাতিপাড়া পর্যন্ত দুই কিলোমিটার সড়কে লাগানো হয়েছে নানা ধরণের সবজি। এরমধ্যে রয়েছে সিম, লাউ, ঝিঙে, মিষ্টি কুমড়া, শষা, সজিনা প্রভৃতি। পাশাপাশি রয়েছে আম, লিচুসহ নানা ফলদ গাছের চারাও।
এলাকার উপকারভোগী মমতাজ আলী, মানিক ও অন্যান্য কৃষকরা জানায়, সড়কের ধারে সবজি চাষে পাশের জমিতে সেধরণের কোনো ছায়া পড়েনা। ফলে এ কাজে কেউ বাঁধা দেয়না। এতে করে সবজি চাষ করে আমরা লাভবান হচ্ছি।
পাখাতিপাড়ার রাস্তার ধারের সবজির মাঁচা থেকে সবজি সংগ্রহ করছিলেন মো. নজরুল ইসলামের স্ত্রী শাফিয়া বেগম। তিনি জানান, সাম্প্রতিক সময়ের অতি বৃষ্টিতে জমিতে লাগানো অনেক শাকসবজির ক্ষেত পচে নষ্ট হয়ে গেছে। ফলে বর্তমানে বাজারে শাকসবজি তুলনামূলক কম। তাই বাজারে চড়া দামে নানা রকম শাকসবজি বেচাবিক্রি হচ্ছে। কিন্তু আমাদের গ্রামীণ সড়কে লাগানো সবজি বৃষ্টির কারণে কোন রকম ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। তাই আমরা রাস্তার দুই ধারে লাগানো সবজি দিয়ে বর্তমান সময়ে পরিবারের তরিতরকারির দৈনন্দিন চাহিদা পূরণ করতে পারছি। ফলে আর আমাদের বাজার থেকে বেশি দামে শাকসবজি কিনতে হচ্ছে না। এতে আমাদের সংসারে শাক-সবজি খরচ অনেকটাই সাশ্রয় হচ্ছে।
ব্লকটির উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান আশা বলেন, প্রথমে এলাকার কৃষকদের সচেতনতার জন্য সভা-সমাবেশ ও প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়। এরপর কৃষকরা আগ্রহী হয়ে উঠলে কৃষি বিভাগ থেকে বীজ ও চারা প্রদান করা হয়। ফলে এলাকার কৃষকরা সবজি চাষে লাভবান হচ্ছেন। তারা নিজেদের চাহিদা মিটিয়ে এসব বাজারে বিক্রি করতে পারছেন।
সৈয়দপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ শাহিনা বেগম জানান, গ্রামীণ সড়কের দুপাশে পরিত্যক্ত জমিতে সবজি চাষে ভালো পাচ্ছেন কৃষকরা। তারা নিজেরাই তদারকি করছেন। তবে কারিগরী সহযোগিতা ও পরামর্শ কৃষি বিভাগ থেকে দেওয়া হচ্ছে। তিনি বলেন, পরবর্তীতে গ্রামের অন্যান্য সড়কের পাশেও এসব সবজি চাষের পরিকল্পনা নিয়ে কৃষি বিভাগ এগিয়ে যাচ্ছে।

দেশতথ্য//এল//

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Deshtathya
Theme Design By : Rubel Ahammed Nannu : 01711011640