1. nannunews7@gmail.com : admin :
  2. labonnohaq71@gmail.com : Labonno Haq : Labonno Haq
মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ১২:৪৯ অপরাহ্ন

কুষ্টিয়া জেলার সকল সংবাদ

  • প্রকাশিত সময় : বৃহস্পতিবার, ১৫ অক্টোবর, ২০২০
  • ১ বার

কুষ্টিয়ায় প্রতিপক্ষের হামলায় তিনজন আহত

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি:

একাধিক মামলার আসামী ইদ্রিস বাহিনীর হামলায় কুষ্টিয়ার কুমারখালী বাংলাদেশ অনলাইন বঙ্গবন্ধু ঐক্য পরিষদ কুমারখালী উপজেলা শাখা এর শ্রম ও মানব সম্পদ বিষয়ক সম্পাদক আঃ কাদের, তার স্ত্রী ও সন্তানকে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে হামলা করে মারাত্মক জখম করেছে।

সূত্রে জানা যায়, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে গতকাল ১৪ অক্টোবর রাত আনুমানিক ৮ টার সময় আঃ কাদেরের ছেলে আফজাল চাউলকূঠা গ্রামে চা খাওয়ার সময় বাহিনী প্রধান ইদ্রিস আলীসহ মোট ১১ জন পরিকল্পিত দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়।

আঃ কাদের ও তার স্ত্রী ছেলে আফজালকে বাঁচাতে এগিয়ে আসলে তাদেরকে কোঁপাতে থাকে উক্ত সন্ত্রাসীরা। তাদের চেচামেচিতে সবাই এগিয়ে আসলে আসামীরা পালিয়ে যায়।

এ ব্যপারে আঃ কাদের বাদী হয়ে কুমারখালী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে।

সনদ নিয়ে চাকরি করায় প্রভাষকের বিরুদ্ধে মামলা

মোমেছুর রহমান, কুষ্টিয়া:
কুষ্টিয়ায় ভুয়া সনদ নিয়ে চাকরি করার অপরাধে সেই প্রভাষকের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।
সূত্র জানায়, কুষ্টিয়ার কুমারখালী সরকারি কলেজে ভুয়া সনদে ৯ বছর চাকরি করাকালীন কলেজটি জাতীয় করন হবার পর বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (NTRCA) কর্তৃক ইসলামিক স্টাডিজ প্রভাষক সাবিরা খাতুনের নিবন্ধন সনদবিভাগের ভুয়া বলে প্রমাণিত হওয়ায় কলেজের অধ্যক্ষকে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য চিঠি পাঠানো হয় এবং কলেজের অধ্যক্ষ বাদী হয়ে কুমারখালী থানায় ঐ প্রভাষকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন। যার মামলা নং-০৯ তাং ১৪/১০/২০২০ ।

জানা যায়, কুমারখালী বেসরকারি ডিগ্রি কলেজ ২০১৮ সালের ৮ আগস্ট জাতীয়করন হয় । কলেজটি জাতীয়করণ ঘোষণার পর সনদ যাচাই-বাছাইয়ের জন্য শিক্ষকদের প্রয়োজনীয় কাগজপত্রাদি পাঠানো হয় NTRCA তে । তারমধ্যে ২৯ জন শিক্ষকের ফলাফল পাওয়া যায় এবং সনদ যাচাইয়ে আরবী ও ইসলামী শিক্ষা বিভাগের প্রভাষক সাবিরা খাতুনের নিবন্ধন সনদ ভুয়া প্রমাণিত বলে অতি সম্প্রতি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন এনটিআরসিএর সহকারী পরিচালক তাজুল ইসলাম স্বাক্ষরিত ১৬৯৭ স্মারকে সনদ যাচাই সংক্রান্ত চিঠি গত ২৯ সেপ্টেম্বর ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয় । এছাড়া কলেজের অধ্যক্ষকে ই-মেইল মারফত এ সংক্রান্ত চিঠি পাঠানো হয় । ভুয়া সনদে চাকরির অপরাধে ওই প্রভাষকের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়েরসহ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করে এনটিআরসিএ কর্তৃপক্ষকে অবগত করার জন্য ।

NTRCA‘র প্রেরিত চিঠিতে উল্লেখ করা হয় যে, ২০০৮ সালে অনুষ্ঠিত চতুর্থ ব্যাচের নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ মর্মে সাবিরা খাতুনের দাখিলকৃত নিবন্ধন সনদের রোল নম্বর ২১৪১০৭৯৬, রেজিস্ট্রেশন নম্বর ৮০৫৫৯১১৪ যাচাইকালে সনদটি ভুয়া প্রমাণিত হয় । এছাড়া নিবন্ধন পরীক্ষায় তার প্রাপ্ত নম্বর ছিল ২৭ এবং তিনি ওই নিবন্ধন পরীক্ষায় অনুত্তীর্ণ বলেও চিঠিতে উল্লেখ করা হয়েছে । সম্পূর্ণ জালিয়াতির আশ্রয়ে ভুয়া সনদে সাবিরা খাতুন ২০১১ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি প্রভাষক পদে কলেজে নিয়োগ লাভ করেন । এরপর ২০১১ সালের ১ মে তিনি এমপিও ভুক্ত হন । এমপিও ভুক্তির পর থেকে দীর্ঘ নয় বছর যাবত অবৈধ পন্থায় তিনি সরকারি আর্থিক সুবিধা ভোগ করছিলেন ।

কুমারখালী সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ শরিফ হোসেন জানান, প্রথমে প্রভাষক সাবিরা খাতুনের নিবন্ধন সনদ ভুয়া সংক্রান্ত বিষয়টি NTRCA‘র ওয়েবসাইট মারফত জানতে পারি । পরবর্তীতে গত ১৩ অক্টোবর চিঠি পেয়েছি তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য। এবং ১৪ অক্টোবর তার বিরুদ্ধে কুমারখালী থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে । তিনি আরো বলেন কলেজের মোট ৫২ টি নিবন্ধন সনদ পাঠানো হয় এনটিআরসিএতে তার মধ্যে শুধু একটি সনদ জাল বলে প্রমাণিত হয়েছে ।

কুমারখালীর থানার ওসি (ভারপ্রাপ্ত) মামুনুর রশিদ বলেন, কুমারখালী সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ শরিফ হোসেন অভিযুক্ত প্রভাষকের বিরুদ্ধে বাদী হয়ে মামলা করেছেন ।

 

কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় হিন্দু সম্প্রদায়ের এক মেয়েকে ধর্ষণের চেষ্টা

ডাঃ কামরুল ইসলাম মনা :কুষ্টিয়ার ভেড়ামারার হিড়িমদিয়া গ্রামের সংখ্যা লঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের এক কলেজ ছাত্রীকে দুই সন্তানের জনক হাফিজুল কর্তৃক ধর্ষণ চেষ্টার ঘটনা ঘটেছে।

এ ব্যাপারে ভেড়ামারা থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের হয়েছে, মামলা নং ৪, তারিখ ১১-১০-২০।

স্বরেজমিনে গিয়ে এলাকাবাসী ও এজাহার সূত্রে জানা যায় যে, সংখ্যা লঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের বিধবা মা গত ১০-১০-২০ তারিখে সরকার ঘোষিত দুঃস্থ চাউল এর খবর জানাতে মেয়েকে প্রতিবেশী ফজল মন্ডলের বাড়িতে পাঠালে মেয়ে খবর দিয়ে বাড়িতে ফিরে আসার পথে ২ সন্তানের জনক হাফিজুল কর্তৃক ধর্ষণ চেষ্টার স্বীকার হন।
আমার মেয়ের আত্নচিৎকারে শহিদুল,দেবীলাল এসে রক্ষা করে এবং হাফিজুল পালিয়ে যায়।

তিনি আরো বলেন হাফিজুল এর ভাগ্নে জামাল গং মুখ বেধে বাড়ির আশপাশে ঘুরতে দেখা গেছে, ফলে সংখ্যা লঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের বিধবা মা ও তার মেয়ে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলে জানিয়েছেন মেয়ের মা।

ছেলের বাবা মুল্লুক চাদ বলেন, আমি আমার ছেলের বিচার চায়, ছেলের চাচাতো ভাই আনারুল জানান এর বিচার চাই ওকে পেলে কঠিন ধুলায় দিবো। এলাকাবাসী এবং নির্যাতিত সংখ্যা লঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের বিধবা মা ও মেয়ে এর বিচার এবং নিরাপত্তা প্রার্থনা করেছেন।
এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানা পুলিশ আসামি ধরতে পারেনি

কুষ্টিয়ায় বেশি দামে আলু বিক্রির দায়ে ৯ ব্যবসায়ীকে জরিমানা
হুমায়ূন কবির হিমু, মিরপুর (কুষ্টিয়া) সংবাদদাতাঃ কুষ্টিয়ার মিরপুরে সরকার নির্ধারিত দামের চেয়ে বেশি দামে আলু বিক্রয়ের দায়ে ৯ ব্যবসায়ীকে জরিমানা করা হয়েছে।
আজ বৃহস্পতিবার (১৫ অক্টোবর) সকালে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) রকিবুল হাসানের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত “তহ” বাজারে অভিযান চালিয়ে আব্বাস, মেহেদী, হাফিজুল, রহমাত, খোকন, শাহজাহান, হাশেম, আতিয়ার ও সবুর নামের ব্যবসায়ীকে পাঁচশত টাকা করে সাড়ে ৪ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেন।
এ সময়ে মিরপুর থানার এসআই আব্দুর রশিদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। অভিযানকালে ভ্রাম্যমাণ আদালতে বিচারক রকিবুল হাসান মূল্য তালিকা প্রর্দশনের নিদের্শ দেন।

কুষ্টিয়া কাষ্টমস’র অভিযানে ২ লাখ ৭০ হাজার নকল বিড়ি উদ্ধার

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি:

কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় ২ লাখ ৭০ হাজার নকল ব্যান্ডরোলযুক্ত বিড়ি আটক করা হয়েছে।
গতকাল বুধবার বিকেলে যশোর কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেটের আওতাধীন কুষ্টিয়া ভ্যাট বিভাগের কর্মকর্তারা এসব বিড়ি উদ্ধার করেন।
যশোর ভ্যাট কমিশনার মো. জাকির হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, একটি চক্র নকল ও ব্যবহৃত ব্যান্ডরোল ব্যবহারের মাধ্যমে রাজস্ব ফাঁকি দেওয়া বিড়ি-সিগারেট বাজারজাত করে আসছে। তিনি বলেন, রাজস্ব ফাঁকি রোধে কমিশনারেটের আওতাধীন সব জেলায় নিয়মিত অভিযান চালানো হয়। এরই অংশ হিসেবে কুষ্টিয়া বিভাগীয় কর্মকর্তার নেতৃত্বে একটি টিম ভেড়ামারা বাসস্ট্যান্ড থেকে ২ লাখ ৭০ হাজার নকল ব্যান্ডরোলযুক্ত বিড়ি আটক করে। এর মধ্যে এক লাখ ২০ হাজার শলাকা হোসেন বিড়ি, ৮০ হাজার শলাকা ফাইটার বিড়ি, ৪০ হাজার শলাকা সাগর বিড়ি ও ৩০ হাজার শলাকা সোনালী বিড়ি। যার মোট মূল্য ১ লাখ ৯৪ হাজার ৪০০ টাকা, যাতে জড়িত রাজস্ব ৮৭ হাজার ৪৮০ টাকা। প্রতিষ্ঠানগুলোর বিপরীতে আইন অনুযায়ী মামলা করা হবে জানান অভিযানিক দল।

কুষ্টিয়ায় মাদক ব্যবসায়ী আটক

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি:

আজ সকালে কুষ্টিয়ার জগতি এলাকায় টাস্কফোর্স এর অভিযানে মাসুম এক মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার হয়েছে। ( এর আগে একই ধরনের অপরাধের দায়ে দুই দফায় তিন মাস কারা ভোগ করেছে সে) তার কাছে ৪০০ গ্রাম গাঁজা, বিএসটিআই অনুমোদনহীন রিচার্জ নামক ১০০মিলি উত্তেজনা বর্ধক ওষুধ এবং গাঁজা সেবনের সরঞ্জামাদি পাওয়া যাওয়ায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন, ২০১৮ অনুসারে ১ বছর ৮ মাসের কারাদণ্ড প্রদান করা হয়।

অপরদিকে চৌরহাস এলাকায় রফিকুল ইসলাম নামের একজনের কাছে দেড় কেজি গাঁজা, মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত নগদ ৭৯২৯০ টাকা এবং গাঁজা সেবনের সরঞ্জামাদি পাওয়া যাওয়ায় তার বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা দায়েরের নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।

 

কুষ্টিয়ায় সরকারি জায়গা দখল করে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণের অভিযোগ

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি:

কুষ্টিয়া ইবি থানাধীন ঝাউদিয়া ইউনিয়নের ঝাউদিয়া বাজারের সরকারি জায়গা দখল করে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ করছে স্থানীয় কিছু প্রভাবশালীরা।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, কাশিনাথপুরের মছলেম নামে তিনজন ব্যক্তি এই অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ করছেন। দীর্ঘদিন যাবত তারা সরকারি জায়গা দখল করে দোকানপাট নির্মাণ করে , ভুষির ব্যবসা করে যাচ্ছে , ঝাউদিয়া বাজারের এই কুমার নদীর জায়গা দখল করে নানা স্থাপনা তৈরি করায় হুমকির মুখে আজ এই কুমার নদী। স্থানীয়দের দাবি অতি শীঘ্রই এইসব সরকারি জায়গা দখলকারীদের দৌড়ঝাঁপ ঠেকাতে না পারলে বিলীন হয়ে যেতে পারে এসব নদীপথ।

তাই এসব সরকারি জায়গা অবমুক্ত করা এখন সময়ের দাবি বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

কুষ্টিয়ায় কোরআন অবমাননাকারী রাজিবের শাস্তি দাবি

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি:
কুষ্টিয়ায় কুরআন অবমাননাকারীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছে ওলামা পরিষদ।

আজ বৃহস্পতিবার কুষ্টিয়া র্যাব ক্যাম্পের সামনের গলির রাজিব কর্তৃক কোরআন অবমাননা করে পুড়িয়েছে ও পৃষ্ঠা ছিড়ে তা বাসা ও রাস্তার ছড়িয়েছে।
এমন ন্যক্কারজনক ঘটনা ঘটানোর প্রতিবাদ ও রাজিবের শাস্তির দাবিতে বৃহত্তর কুষ্টিয়া জেলা উলামা পরিযদ জরুরি সভা করছে।

 

কুষ্টিয়ায় মাদক ব্যবসায়ী আটক
কুষ্টিয়া প্রতিনিধি:
র্যাব-১২, সিপিসি-১, কুষ্টিয়া ক্যাম্পের একটি আভিযানিক দল ১৫ অক্টোবর ২০২০ ইং তারিখ দুপুরে ‘‘কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে শ্যামপুর গ্রামে মাদক অভিযানে ১৯৫ পিস ইয়াবা , মোবাইল ফোন-১টি, সীমকার্ড-১টি ও নগদ-১৩৫/- টাকা সহ ১ জন আসামী মোঃ আসাদুল ইসলাম (৫০), পিতা-মৃত আঃ হালিম সাং-নজিবপুর, থানা-দৌলতপুর, জেলা-কুষ্টিয়া’কে গ্রেফতার করা হয়।
পরবর্তীতে উদ্ধারকৃত আলামতসহ ধৃত আসামীর বিরুদ্ধে কুষ্টিয়া জেলার দৌলতপুর থানায় একটি মাদক মামলা দায়ের করা হয়েছে এবং গ্রেফতারকৃত আসামী’কে কুষ্টিয়া জেলার দৌলতপুর থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।

 

 

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Deshtathya
Theme Design By : Rubel Ahammed Nannu : 01711011640