1. nannunews7@gmail.com : admin :
  2. labonnohaq71@gmail.com : Labonno Haq : Labonno Haq
বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০, ০৯:৪১ পূর্বাহ্ন

কুষ্টিয়া জেলার সকল সংবাদ

  • প্রকাশিত সময় : সোমবার, ১২ অক্টোবর, ২০২০
  • ১৯ বার

কুষ্টিয়ায় অভাবের তাড়নায় প্রতিবন্ধী তরুণীর আত্মহত্যা

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি: কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার যদুবয়রা গ্রামে শারীরিক প্রতিবন্ধী রত্না খাতুন (২৬) নামের এক তরুণী আত্বহত্যা করেছে।
সোমবার সকালে নিজ ঘর থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করে পরিবার। করোনাকালীন সংকটে সংসারে অভাব অনটনের কারনেই রত্বা আত্মহত্যা করেছেন বলে দাবি পরিবার ও এলাকাবাসীর।

মৃত রত্না খাতুন(২৬) উপজেলার যদুবয়বা ইউনিয়নের উত্তর যদুবয়রা গ্রামের দিন মজুর মফিজ উদ্দিনের মেয়ে।

স্থানীয় এলাকাবাসী সূত্রে জানায়, রত্না খাতুন জন্মগতভাবে শারীরিক প্রতিবন্ধী। রোগ যন্ত্রনায় ঔষুধ ছিলো তার প্রতিদিনের সঙ্গী। সে নিজেই সাধ্যানুযায়ী দর্জির কাজ করে কোন রকম সংসার চালাতো। বয়স ২৬ বছরেও তার কোন প্রতিবন্ধী ভাতার কার্ড জোটেনি কপালে। কোনো প্রকার সরকারি সাহায্যও জোটেনি তার। নিজের আত্মসম্মান বজায় রেখে প্রতিবন্ধী হয়েও দর্জির কাজ করে কোন রকম জীবন চালাতো। বুঝতে দেননি কাউকে। কিন্তু করোনাকালীন সংকটে কাজ না থাকায় চরম দৈন্যতার মধ্যে পড়েছিলো।

রত্নার পিতা দিনমজুর মফিজ উদ্দিনের দাবি, বেশ কিছুদিন ধরে দর্জির কাজ না পাওয়ায় ওর ওষুধ কিনতে পারছিলো না। রাতে চরম যন্ত্রনায় ছটফট করত। অভাবের কষ্ট সইতে না পেরেই গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে সব যন্ত্রনা শেষ করে দিয়েছে।

এবিষয়ে যদুবয়বা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শরিফুল আলম বলেন, রত্বার প্রতিবন্ধী ভাতার কার্ড প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। জন্মগত ভাবে অসুস্থ্যতার কারনে শারিরিক কষ্ট সইতে না পেরে সে হয়ত আত্বহত্যা করে থাকতে পারে।

কুমারখালী থানার ওসি তদন্ত মামুনুর রশিদ আত্বহত্যার বিষটি নিশ্চিত করে জানান, সংবাদ পেয়ে মৃত রত্বার লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করেছে পুলিশ।

কুমারখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) এম এ মুহাইমিন আল জিহান বলেন, শারিরীক দুরারোগ্যে আক্রান্ত প্রতিবন্ধী রত্মা আসলে দীর্ঘদিন ধরেই রোগ যন্ত্রনায় ভুগছিলেন। সাংসারিক দৈন্যতার পাশাপাশি এই রোগ যন্ত্রনা থেকেই হতাশার কারণে আত্মহত্যা করে থাকতে পারে। ঘটনাটি শোনার পর সংশ্লিষ্ট আইন শৃংখলা ও সমাজ সেবা কর্মকর্তাদের তদন্তের নির্দেশ দিয়েছি।

কুষ্টিয়ায় ক্যান্সারে ইবি কর্মকর্তার মৃত্যু

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি:

মরণব্যাধি ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে না ফেরার দেশে চলে গেলেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইবি’র এক কর্মকর্তা। নিহত হাশেম আলী বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাব ও অর্থ বিভাগের সহকারী রেজিস্ট্রার হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

সোমবার (১২ অক্টোবর) ভোরে ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। (ইন্না-লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।
জানা যায়, হাসেম আলী দীর্ঘদিন যাবৎ ক্যান্সার রোগে ভুগছিলেন। তার বাড়ি ইবি ক্যাম্পাস পার্শ্ববর্তী মধুপুর গ্রামে। তিনি একজন সৎ মানুষ এবং সৎ কর্মকর্তা হিসেবেই সবার কাছে পরিচিত ছিলেন। হাসেম আলী প্রথমে কেন্দ্রীয় লাইব্রেরী, ইঞ্জিনিয়ারিং সেকশনসহ পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অফিসের মাদ্রাসা সেলে দায়িত্ব পালন করেন।
তার মৃত্যুতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি, প্রো-ভিসি, ট্রেজারার এবং বিভিন্ন শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও ইবিসাস গভীরভাবে শোক প্রকাশ করেছেন।

 

কুষ্টিয়ার নন্দলালপুর ইউপি নির্বাচন ঘিরে চলছে প্রচারণার হাওয়া

আরিফুজ্জামান, কুষ্টিয়া: কুষ্টিয়া জেলার কুমারখালী উপজেলার অন্যতম একটি ইউনিয়ন নন্দলালপুর।
ইউনিয়ন জুড়ে রয়েছে দেশের অন্যতম তাঁত শিল্প, কৃষি কর্মক্ষেত্র সহ নানান প্রসিদ্ধ শিল্প। তবে আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে ঘিরে চলছে ব্যাপক প্রচার-প্রচারণা। এখন পর্যন্ত প্রচারণায় শীর্ষে আছে নতুনরা, নিজেদের অবস্থান ধরে রাখতে বদ্ধপরিকর সিনিয়র প্রার্থীরা। ইউনিয়ন পরিষদে দীর্ঘদিন রাজত্ব করেছেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর মনোনীত প্রার্থী নজরুল ইসলাম। বর্তমানে চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব আছেন আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী নওশের আলী বিশ্বাস। প্রতিবারই বেশ শক্ত অবস্থানে থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন বি এন পির মনোনীত প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ। এছাড়াও সতন্ত্র চেয়ারম্যান হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন জিয়াউর রহমান খোকন। তবে এবার আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে কিছুটা ভিন্নতা দেখা যাচ্ছে। বিশেষ করে প্রচারণায় বেশ এগিয়ে আছে নতুন চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হিসেবে যারা মাঠে নেমেছে। সম্প্রতিক লক্ষ করা যায় কুমারখালী উপজেলা স্বেচ্ছাসেবী(নানা মহলে বিতর্কিত কমিটি) লীগের সভাপতি সিরাজুল ইসলাম ভুট্টো বেশ জোরেশোরেই প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। ইতিমধ্যেই লক্ষ্য করা গেছে ছোট ছোট পথ সমাবেশ সহ মোটরসাইকেল মহড়া দিচ্ছেন। অপরদিকে নতুন প্রার্থী হিসেবে জানান দেওয়ার সাথে সাথেই যেন যুবকদের মধ্যে জায়গা করে নিয়েছেন লিটন শেখ।লিটন ছাত্রজীবনে কুষ্টিয়া সরকারি কলেজের ছাত্র মৈত্রীর নেতা ছিলেন। পরবর্তীতে সে স্থানীয় ছাত্রলীগের সঙ্গে ও রাজনীতি করেছেন বলে জানা যায়। তবে ইতিমধ্যেই তিনি চেয়ারম্যান নির্বাচন করবেন এমন জানান দেওয়ার সাথে সাথে যুব সমাজের মাঝে যেন এক আনন্দের আমেজ শুরু হয়ে গেছে। অতি অল্প সময়ে যুবসমাজের মধ্যে জায়গা করে নিয়েছেন তার প্রমাণ পাওয়া যায় ফেসবুক টুইটারসহ নানা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।চুলচেরা বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে নন্দলালপুর ইউনিয়ন পরিষদে সকল প্রার্থীদের চেয়ে প্রচারণায় এখন এগিয়ে আছে সাবেক ছাত্র নেতা লিটন শেখ।চায়ের দোকান থেকে শুরু করে রাজনীতি অঙ্গনে সর্বোচ্চ স্থানে ও আলোচনার ম্যান হয়ে দাঁড়িয়েছেন সবেমাত্র রাজনীতিতে আসা লিটন শেখ। সিনিয়র রাজনীতিবিদরা মনে করছেন রাজনৈতিক মাঠে যে কোন প্রার্থীর জন্যই নন্দলালপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে লিটন শেখ একটা ফ্যাক্ট হয়ে দাঁড়াবে।তরুণ ও সুশিক্ষিত হওয়ায় তার প্রভাব টা যেন একটু বেশি পড়ছে। অপরদিকে গুঞ্জন আছে” লিটন শেখ আর সাবেক চেয়ারম্যান জিয়াউর রহমান খোকন একই গ্রাম আর ক্লোজ বন্ধু হওয়া তে শেষ পর্যন্ত যে কোন একজন নির্বাচন করতে পারে। তবে কে করবে এটা নিয়ে ধূম্র জালের সৃস্টি হয়েছে।যদিও সাবেক চেয়ারম্যান জিয়াউর রহমান খোকনকে এখনো নির্বাচনী মাঠে সরাসরি দেখা না গেলেও শেষ রাতে ওস্তাদের মার এমন ধারণাও করছে অনেকেই। সাবেক এই চেয়ারম্যান জিয়াউর রহমান খোকন বিশিষ্ট দানবীর আলাউদ্দিন আহমেদ এর আত্মীয় হওয়ায় তার প্রভাবও রয়েছে তুমুল। সরাসরি নির্বাচনী প্রচারণা না করলেও অনেকেই মনে করছেন তিনিও হতে পারেন এবারের প্রার্থী।
অপরদিকে নিজের শক্ত অবস্থান ধরে রাখার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা ও নন্দলালপুর ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান নওশের আলী বিশ্বাস। করোনা কালীন সময়ে তিনি মানুষের পাশে থাকার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। সেই সাথে বিভিন্ন স্থানে ছোট ছোট সভা-সমাবেশ ও পথসভা চালিয়ে যাচ্ছে। অপরদিকে বিএনপির শক্তিমান প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ তিনিও বসে নেই। প্রকাশ্যে না আসলেও ভেতর ভেতরে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলেও জানা গেছে। নন্দলালপুর ইউনিয়ন জুড়ে আবুল কালাম আজাদের ভালো পরিচিতি থাকায় তার জন্য কিছুটা সুবিধা বয়ে আনবে। অন্যদিকে বাংলাদেশ জামায়াত ইসলামের মনোনীত প্রার্থী ও নন্দলালপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক দুই বার নির্বাচিত চেয়ারম্যান নজরুল ইসলামের অবস্থান বেশ শক্ত আছে। একটি জরিপে দেখা গেছে নন্দলালপুর ইউনিয়ন জুড়ে জামাত ইসলামের বড় একটি ভোট ব্যাংক রয়েছে। আর এই সুযোগটা কাজে লাগিয়ে নির্বাচনে বিজয় টা বাগিয়ে নেবার সম্ভাবনাও রয়েছে সাবেক এই ক্লিন ইমেজ খ্যাত চেয়ারম্যান এর সম্পর্কে। বিশেষ করে জনসাধারণের কাছে তার সততার বড় একটি মাপকাঠি প্রমাণ রয়েছে। বিশেষ করে কোন অন্যায় দুর্নীতি তাকে গ্রাস করতে পারেনি বলে মন্তব্য সাধারণ জনগণের। অপরদিকে আওয়ামী লীগের নেতা সিরাজুল ইসলাম ভুট্টো গতবছর নির্বাচনী প্রচারণা চালালেও শেষ পর্যন্ত মাঠে থাকতে পারেননি। তবে গুঞ্জন আছে এবছর নৌকার মাঝি সিরাজুল ইসলাম ভুট্টো ও হতে পারেন। আর সেই আশাতেই সারা ইউনিয়ন চোষে বেড়াচ্ছেন আওয়ামী লীগের এই নেতা। ইতিমধ্যেই বেশ সুনাম ও জনপ্রিয়তা ও কুড়িয়েছে। সব মিলে নির্বাচনী দিন যত এগিয়ে আসছে প্রচার-প্রচারণা ততই বেশি হচ্ছে। আর সাধারন জনগন চাচ্ছেন নতুন কোনো মুখ দেখতে। আর বিষয়টি যদি এমন হয় তাহলে দেখা গেছে লিটন শেখ এদিক থেকে অনেক এগিয়ে আছে। অন্য প্রার্থীরাও নেই পিছিয়ে।

 

সাপের কামড়ে ইবি শিক্ষার্থীর মৃত্যু

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি:

ছেলে রাসেলকে ঘিরে বাবা-মায়ের স্বপ্ন ছিল আকাশছোঁয়া। পড়ালেখা শিখে ছেলে একদিন নিজের পায়ে দাঁড়াবে। মুখ উজ্বল করবে পরিবারের। কিন্তু গভীর রাতে বিষধর সাপের দংশনে সেই স্বপ্নের মৃত্যু ঘটেছে।ঝিনাইদহের শৈলকুপা থানার শেখ পাড়া গ্রামের আমজাদ হোসেন মোল্লার ছেলে রাসেল হোসেন। ঘুমন্ত অবস্থায় বিষধর সাপের দংশনে চলে গেলেন না ফেরার দেশে। নিহত রাসেল ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেভেলপমেন্ট স্ট্যাডিজ বিভাগের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রাসেল রোববার ভোর রাতে ঘুমন্ত অবস্থায় ডান হাতের কনুইর নিচে সাপে কামড় দেয়। পরে আনুমানিক রাত ৪টার দিকে সে ঘুম থেকে জেগে উঠে হাতের কনুই নিচ থেকে রক্ত ঝড়তে দেখে। পরে বিষয়টি তার মাকে জানালে স্হানীয় ওঝা দিয়ে ঝাঁড়ফুক করা হয়।
সকালের দিকে তার শরীরের অবস্থার অবনতি হলে শৈলকুপা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে কুষ্টিয়া সদর হাসপাতালে নেওয়ার পথে সে মারা যায়।

 

এনআইডি জালিয়াতি মামলায় গ্রেফতার আরও একজনের স্বীকারোক্তি
কুষ্টিয়া প্রতিনিধি: কুষ্টিয়ায় জাতীয় পরিচয় পত্র জালিয়াতি করে জমি দখলের মামলায় গ্রেফতার আমিরুল ইসলাম নামে আরও একজনের আদালতে দায় স্বীকার করে জবানবন্দী দিয়েছেন।
এসময় বহুল আলোচিত কুষ্টিয়া জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজি রবিউল ইসলামের সংশ্লিষ্টতার কথা স্বিকার করেছেন। এর আগে রবিবার গভীর রাতে তাকে নিজ বাড়ি সদর উপজেলার আলামপুর গ্রাম থেকে গ্রেফতার করে গোয়েন্দা (ডিবি)পুলিশের একটি টীম।

গ্রেফতার আমিরুল(৫০) কুষ্টিয়া সদর উপজেলার আলামপুর বালিয়াপাড়া এলাকার মৃত আবুল বিশ্বাসের ছেলে। সে পরিচয় গোপন করে কুষ্টিয়া শহরের বাসিন্দা এমএম এ ওয়াদুদের নাম পরিচয় ধারণ করে শত কোটি টাকার বাড়ি ও ভু-সম্পত্তি হাতিয়ে নেওয়া চক্রের অন্যতম সদস্য বলে জানায় পুলিশ।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে কুষ্টিয়া পুলিশ সুপার এসএম তানভির আরাফাত জানান, সোমবার দুপুরে গ্রেফতার আমিরুলকে কুষ্টিয়া সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আমলী আদালত-১ এর বিচারক দেলোয়ার হোসেনের আদালতে সৌপর্দ করলে সেখানে তিনি দায় স্বীকার করে জবানবন্দী দিয়েছেন। এসময় আমিরুল তার স্বীকারোক্তিতে আরও নতুন কিছু গুরুত্বপূর্ন তথ্যসহ ইতোপূর্বে গ্রেফতার আসামীদের দেয়া তথ্যের সাথে সাদৃশ্য তথ্যও দিয়েছেন। জবানবন্দী রেকর্ড ও শুনানী শেষে তাকে জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন আদালত।

আদালতে ১৬৪ধারায় দেয়া স্বিকারোক্তিতে গ্রেফতার আমিরুল ইসলাম যা বলেছেন,“ আমি ভাতের হোটেলের ব্যবসা করি। প্রতিবেশী ফারুক সে আসাদুর রহমান বাবু মেম্বারের সাথে আমার পরিচয় করিয়ে দেয়। একদিন বাবু মেম্বার আমার সাথে দেখা করে বলে আমার সরকারি ভাতার কার্ড আছে কি না ? আমি বলি, নাই। বাবু মেম্বার তখন বলে আমি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রবিউলের মাধ্যমে কার্ড করে দেব। এরপর আমি বাবু মেম্বারের সাথে যোগাযোগ করলে সে আমাকে কুমারখালী নির্বাচন অফিসে নিয়ে আমার ছবি তোলার ব্যবস্থা করে। এরপর সে আমাকে ১শ টাকা দিয়ে বাড়ি যেতে বলে। কিছুদিন পর বাবু মেম্বার আমাকে ও আমাদের গ্রামের আনজিরা, পিনজিরাসহ আরও কয়েকজন মহিলাকে নিয়ে কুষ্টিয়া রেজিষ্ট্রি অফিসে যায়। সে আমাকে একটি ষ্ট্যাম্পে স্বাক্ষর করতে বললে আমি উক্ত অফিসের বান্দায় টিপসই দেই। এরপর বাবু মেম্বার আমাদের সকলকে মিষ্টি খেতে ১হাজার করে টাকা দেয়। গত কুরবানী ঈদের ২সপ্তাহ আগে বাবু ও হাসান আমাকে ও পিনজিরাকে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এর বাড়ী মিল পাড়াতে নিয়ে যায় এবং তার সাথে আমাদের পরিচয় করিয়ে দেয়। এরপর বাবু মেম্বার চেয়াম্যান রবিউলকে বলে এদেরকে দিয়ে চলবে কি না ? তখন চেয়ারম্যান বলে চলবে। এরপর বাবু বলে তোমাদের বাড়ী ঘর সব হয়ে যাবে আর তোমাদের প্রত্যেকে ১লক্ষ করে টাকা দেব। পরে শুনি আমাদের নিয়ে জালিয়াতি হয়েছে”।

 

ভেড়ামারায় বিদেশী সহযোগিতায় মসজিদে সাব-মারসিবল পাম্প
ভেড়ামারা (কুষ্টিয়া) অফিস: মুসুল্লীদের ওযুখানার পানির সংকট লাঘবে কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় পরানখালী বাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে বসানো হলো সাব-মারসিবল পানির পাম্প।
পরানখালী গ্রামের কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে অস্ট্রেলিয়ান একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘সাদক্বাহ জারিয়া ফর ডিপ পাম্প ওয়াটার ওয়েল’ এর অর্থায়নে পাম্পটি স্থাপন করা হয়।
ভেড়ামারা উপজেলার সুযোগ্য নির্বাহী অফিসার সোহেল মারুফ স্যারের আন্তরিকতায় এবং পরানখালী গ্রামের কৃতি সন্তান, কেন্দ্রীয় মসজিদ কমিটির সভাপতি প্রকৌশলী মোঃ রবিউল ইসলামের সার্বিক প্রচেষ্টায় এবং তত্ত্বাবধানে লক্ষাধিক টাকা ব্যয়ে এই সাব-মারসিবল পাম্পটি স্থাপন করা হয়েছে। মসজিদের বিশেষ সুবিধার্থে পাম্পটি পেয়ে এলাকাবাসী লিয়ান সংগঠনটি এবং উপজেলা নির্বাহী অফিসার মহোদ্বয়কে ধন্যবাদ জানান।
এছাড়া পরানখালী কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ডকে সুন্দরভাবে এগিয়ে নেওয়ার জন্য মসজিদ কমিটির সভাপতি প্রকৌশলী মোঃ রবিউল ইসলামকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। পরিশেষে উক্ত মসজিদের মুসল্লিগণ অস্ট্রেলিয়ান সংগঠনটির সম্মানিত সকল সদস্য, স্থানীয় সকল সহযোগী এবং সংগঠনটির কর্ণধার মনিরা (রেনু) ম্যাডামের সুখ-শান্তি ও দীর্ঘায়ু কামনা করে মহান আল্লাহর দরবারে দোয়া (মোনাজাত) করা হয়।

দেশতথ্য//এল//

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Deshtathya
Theme Design By : Rubel Ahammed Nannu : 01711011640